-->

iPhone 12 Price AND Review | নতুন আইফোন ১২ মূল্য সহ বিস্তারিত জেনে নিন

iPhone 12 Price AND ‍Specification ||

আইফোন ১২ রিভিউতে প্রথমেই যে বিষয়টা আপনাকে অবাক করবে আর সেটি হলো ফোনটার স্লিম ফিগার গঠন শৈলী। সত্যি খুব সুন্দর একটা বক্স জুড়ে দেওয়া হয়েছে ফোনটির সাথে। মনে হয় স্মার্ট ফোনের জন্য এত ছোট এত স্লিম কোনো বক্স এর আগে দেখা যায়নি। আই ফোন বেশ চালাকিই করেছে.বলা যেতে পারে। খুব কৌশল করে হলেও তারা আইফোনের চার্জার (iPhone Charger) টিকে উধাও করে দিয়েছে।. বক্স খুলে হাতে নিয়ে আপনি আরো একবার অবাক হয়ে যাবেন। জিনিসটা যত বড় দেখতে মনে হবে, কিন্তু  হাতে নিলে অতটা ওয়েটের নয়। যার কারনে আপনার মনে হতে পারে ব্যাটারি দিসে তো নাকি ব্যাটারিও দেয়নি! আবারও অবাক হবেন বক্সের ভিতরে আইফোনের ক্যাবলটি দেখে। কিন্তু তাদের ইউজার ম্যানুয়াল গাইড বই দেখলে আপনার মনে হতে পারে আইফোন কোম্পানী এত গরিব হয়ে গেছে ? 


iPhone 12 Price

এই ফোনটার সাইজ বর্তমান সময়ের ফোন এর সাথে তুলনা করতে গেলে অবশ্যই বেশ ছোট বলতে হবে। কিন্তু যেহেতু আমরা Full View Display পাচ্ছি তাই এটা দিয়ে কাজ চালিয়ে নেওয়া মোটেও কোন সমস্যার ব্যাপার নয়। তার পরেও যারা গেমার রয়েছেন, তাদের জন্য অনেক সময় একটু বড় ডিসপ্লে না হলে মনের মধ্যে একটু আকটু আফসোস থেকেই যায়।

বড় ডিসপ্লে হলে বেশি কাজের হয়, আবার অনেকেই আছেন যারা কন্টেক মেকার বা কন্টেন্ট লাভার তাদের হিসেবেও বড় ডিসপ্লে হলে মনের মতো হয় আরকি। যাই হোক এই মোবাইল ফোনে কিন্তু আপনারা সেই পুরনো আইফোনের লুকসটা খুঁজে পাবেন। আপনারা হয়তো বিভিন্ন সময়ে লক্ষ্য করেছেন যে, ফোনটা এত বেশি স্কোয়ার, যে এর পাশে নাকি সার্প এবং সেটাতে নাকি হাত কেটে যাওয়ার মত একটা চান্সও রয়েছে। এমনকি সেটা দিয়ে নাকি কেও কেও আপেলও কাটতে পারেন এমন নানা ধরনের গুজবও হয়ত আপনি শুনতে পেয়েছেন। তবে যাইহোক, এটা অবশ্যই ফ্লাট মানে একদম স্কয়ার টাইপ। কিন্তু তার যে এজ গুলো, যে সাইড সেটাকে একদম কার্ফ করে দেওয়া হয়েছে, হালকা একটু কার্ভ করা রয়েছে, যার ফলে আপনি হাতে ওই ধরনের কোনও ফিল পাবেন না বা এই যে কেটে যায়, এই বিষয়টা আপনার টোটাল একেবারে গুজব বলেই মনে হবে।

তবে একটু হতাশ করে বলতে হচ্ছে, আপনারা কিন্তু কোন ধরনের SD কার্ড ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন না এই নতুন আইফোন টিতে। যেটা থাকবে না সেটাই স্বাভাবিক, আর হ্যা আরো যেটা পাবেন না সেটা হলো, 3.5 mm Front Jack।  Body Film টি Metallic. আর এর দুইটি পাশেই রয়েছে Glass Body. iPhone 12 বলছে তারা এখানে Cyanic Seal ব্যবহার করেছে যেটা আগের চাইতে চার গুণ শক্ত হবে আর কি। তো সেই ক্ষেত্রে এটা যদি আপনার হাত থেকে কোন কারনে মাটিতে পরে যায় তাহলে ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা যে খুবই কম তা বুঝতেই পারছেন। তবে এটাতে কতটুকু দাগ পড়বে বা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সেটা কিন্তু তারা ক্লিয়ার করে বলেননি কিছু। তাই আপনাদের প্রতি আমাদের পরামর্শ থাকবে এর ডিসপ্লে যতই শক্ত হোক না কেন, একটা প্রটেক্টর অবশ্যই আপনি ব্যবহার করবেন।

ফোনটির আরও একটা বিষয় আপনার ভালো নাও লাগতে পারেফোনটাতে প্রচুর পরিমাণে ফিঙ্গারপ্রিন্ট আটকে যায়। আপনি জাস্ট এটাকে মুছবেন তারপরে এক মিনিট শুধুমাত্র এক মিনিটের জন্য এটা ব্যবহার করবেন হাতে নিয়েতারপর দেখবেন আবার ঠিক আগের জায়গায় চলে গিয়েছে। মানে প্রচুর পরিমাণে ফিঙ্গার আটকে যাবে। কাজেই আপনাদের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে পরামর্শ থাকবে এখানেও অবশ্যই একটা ফোন ক্যাসিং বা কভার ব্যবহার করবেন।

একই সাথে আপনাদেরকে আরও একটি কথা জানিয়ে রাখি iPhone Twelve কিন্তু IP Sixty Eight Certified কাজেই ধুলো ময়লা বা পানি কিন্ত ঢুকবে না। আপনি যদি ফোনটাকে পকেটে নিয়ে পানির নিচে ছয় মিটার পর্যন্ত তলিয়ে যান, অথবা গবেষণার কাজেও যান সেখানে ফোনটি আপনার সঙ্গে অক্ষত থাকতে পারবে তিরিশ মিনিটের জন্য এবং তাতে করে কোন ধরনের সমস্যা হবে না 

ডিসপ্লে (Display): Mobile টিতে Display Shape এ রয়েছে Six Point One inch, সুপার রেটিনা XGR Olite Panel. তো এখান থেকে আপনারা যদি সুপার রেটিনা XGR কথাটাকে উঠিয়ে দেন, তাহলে থাকে শুধুমাত্র Panel মানে এটা আসলে একটি Wide Panel. তবে অন্যান্য ফোন গুলোতে আপনারা যেরকম করে কালারটাকে দেখতে পান এটাতে কিন্তু ঠিক সেরকম পাবেন না। এই ধরনের ফোন গুলোতে কালারটাকে আরও একটু গাড় করে করে দেখানো হয় বা পানচ করে দেখানো হয়। যেটাতে বেশ ভালো লাগে কিন্ত এ্যাপল ১২ বা আইফোন ১২ এখানে কালার টাকে এমন ভাবে Calibrate করে নিয়েছে যে এর Color টা একদম Naturally অনুভব করবেন।

প্রসেসর (Processor): ডিসপ্লের সংক্ষিপ্ত আলোচনা থেকে বেড়িয়ে এসে এবার আমরা এর Performance এর দিকে মনোযোগ দিবো। মোবাইল ফোন টি পাওয়া যাবে তিন তিনটি ভেরিয়েন্ট এ। চার চৌষট্টি, চার একশো আঠাশ ও চার দুইশো ছাপ্পান্ন। ফোনটির Processor হিসেবে দেওয়া হয়েছে Bionic A-40 Chipset,  যা পৃথিবীর বুকে প্রথম কোন Processor ফাইভ নেনোমিটার আর্টিরেকচারে তৈরি করা হয়েছে। আর এজন্যই তো অ্যাপেল দাবি করছে তাদের এই Processor বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন জগতে যত ফোনেই রয়েছে তাদের প্রত্যেকের চাইতে ফিফটি পার্সেন্ট ফাস্টার বা ৫০ ভাগ বেশী গতীতে চলতে পারবে। তাদের এই কথাটা ফেলে দেওয়ার মতো না, এটা হতেই পারে কারণ গত বছরের বায়োনিক এবং বর্তমান সময়ের SNAPDRAGON Eight Sixty Five প্লাস এর চাইতেও কিছু অংশে এগিয়ে রয়েছে। কাজেই এটা নিয়ে আর বলার কোনো অপেক্ষা রাখে না মোটেও। আর প্রতিবারই একটা জিনিস আপনারা লক্ষ্য করে থাকবেন যেঅ্যাপেল তাদের Processor Performance দিয়ে পালিককে চমকে দিবেই দিবে। তবে সেটাকে শুধু চমক বললে ভুল হবে আসলেই সেটা দুর্দান্ত পারফর্ম করে।

গেম (Game): গেমারদের জন্য এই ফোনটার রেজাল্ট দূদার্ন্ত এটা বলা অপেক্ষা রাখে না কোনভাবেই। 

সফটওয়্যার (Software): ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে IOS ফোরটিন পয়েন্ট ওয়ান। যেটা আপনার দেখা IOS এর একেবারে সুপার ফাস্ট অপারেটিং সিষ্টেম। 

ক্যামেরা (Camera): চলুন কথা বলা যাক এর ক্যামেরা নিয়ে।  আইফোন ১২ এর সামনের ক্যামেরায় আমরা পাচ্ছি Dual Camera Set up। এর মেইন সেন্সর ‍দুটি ১২ মেগা পিক্সেলের। এখানে যেটা প্রধান ক্যামেরা বা মেইন সেন্সর সেটা দিয়ে যদি আপনি ছবি তোলেন আপনার কাছে মনে হবে দুর্দান্ত পারফর্ম করছে ক্যামরাটি। যেমন Details Dynamic Race অসাধারণ. Just অসাধারণ । এক দেখাতেই এর ছবি নিয়ে আপনি সন্তুষ্ট থাকবেন। আপনারা প্রায় সময় খেয়াল করে থাকবেন যে, ফোনগুলোর ছবি একটু Boosted করে, একটু Color বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু এখানে সেরকম কোনো কিছু লক্ষ্য করা যায়নি। একেবারে বলা যায় Almost close to natural color  এমনকি অল্প আলোতেও দারুণ রেজাল্ট দেয় ক্যামেরাটি। আর এখানে যে Ultra Wide Sensor টা দেওয়া আছে, সেটা থেকেও দেখবেন খুব দূদার্ন্ত রেজাল্ট পাচ্ছেন।

আপনারা সকলেই জানেন  iphone এর ক্যামেরা শুধুমাত্র ছবির জন্যই নয়, ভিডিওর জন্য আরো বেশি ভালো হয়ে থাকে।  ভিডিও কোয়ালিটিতেও আপনি সন্তুষ্ট না হয়ে পারবেন না। এখানে ফোরকে রেজুলেশনে সর্বোচ্চ ভিডিও রেকর্ড করা যাবে এবং ফ্রেম রেট পাবেন ৬০ তে। এখানে আরো সাপোর্টেড হয়েছে Dollvision HDR এবং যেটা কিনা আপনি এই ফোন দিয়েই আবার এডিটও করতে পারবেন। ব্যাপারটা কি অনুভব করতে পারছেন।  মানে অস্থির লেভেলের সব ব্যাপার স্যাপার। যারা Vlogging বা Youtube Video Shoot করতে চান, তাদের জন্য এরকম একটা আইফোনই যথেষ্ট।

ব্যাটারী (Battery): Well এবার আমরা কথা বলবো আইফোন ১২ ব্যাটারী (iPhone 12 Battery) নিয়ে। এই মোবাইল ফোনটিতে ব্যাটারি হিসেবে দেওয়া হয়েছে দুই হাজার আটশো পনেরো মিলিয়ন ক্ষমতার ব্যাটারী ! যেটা শুনে অনেকেই হয়তো এখন হতাশ হতে পারেন। কিন্তু আপনার যদি জানা থাকে যে  iPhone এ বরাবর এমন ব্যাটারিই তারা দিয়ে থাকে। তাহলে অতটা মন খারাপ নাও হতে পারে। কারন এটা কোম্পানীটির পুরাতন অভ্যাস বা বদ অভ্যাস যেটাই বলেন না কেন।  যদিও গত ভার্সনটিতে মানে iPhone 11 তে যা দেওয়া হয়েছিলো এই নতুন ভার্সনটিতে আরও একটু কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। রহস্যটা কি, কিছুই না আসলে ফোনটা টা বেশ স্লিম। তবে একটা ব্যাপার এখানে রয়েছে তা হলো, এই ফোনের যে ডিসপ্লে সেটা কিন্তু ওয়েলেট প্যানেল।  যা চার্জড তুলনা মূলক ভাবে একটু কম খরচ করে।  বিচার বিশ্লেষণ করে বলা যেতে পারে আপনি প্রায় সাত থেকে আট ঘন্টার মতো অন স্ক্রিণ ব্যাটারী ব্যাকাপ পেয়ে যাবেন। তবে দুঃখের ব্যাপার শুধু একটাই, শুধু ফোন কিনে বাড়ি চলে আসলে হবে না সাথে চার্জারটাও আলাদা করে কিনে আনতে হবে। আরও একটা ব্যাপার, চার্জারটা কিন্ত যে সে চার্জার নয় ২০ ওয়াটের একটা আইফোন চার্জার একটু দেখে শুনেই কিনে নিবেন।

কালার (Color): এই ফোনটা পাওয়া যাবে পাঁচটি কালার ভেরিয়েন্টে. ব্ল্যাক, হোয়াইট, ব্ল, গ্রিন এবং রেড। আপনার যে কালার পছন্দ সেটা নিয়ে নিতে পারবেন। আমার অবশ্য ব্যক্তিগত ভাবে ব্ল কালার টাই পছন্দ। মেঘের একটা ছোয়া পাওয়ার মত লাগে ব্যাপারটা।

iPhone 12 Price List:

iPhone 12 Price In Bangladesh BDT. 80,990 - 99,990/-

iPhone 12 Price In India RS. 84,900 - 94,900/-

iPhone 12 Price In Pakistan PKR. 192,000/-

iPhone 12 Price In USD. $999 -1399/-

 

Tags: iPhone 12 Price, iPhone 12 Price In Bd, iPhone 12 Price In Bangladesh, iPhone 12 Price In India, iPhone 12 Price In Pakistan, iPhone 12 Specifications, IPhone 12 Latest Price, IPhone 12 Features, IPhone 12 Review, IPhone 12 Unboxing And Review, IPhone 12 Official Price, IPhone 12 Online Price.

SeeCloseComments
Cancel